ধর্ষণের সময় ছেলেকে সাহায্য করতেন মা !

অলৌকিক দিশারী

সম্প্রতি রাজধানী ঢাকায় ছেলে ও সৎ মায়ের পতিতাবৃত্তি ব্যবসায়ের সাথে জড়িত থাকার একটি চাঞ্চল্যকর ঘটনা দেশব্যাপী ব্যাপক আলোড়ন জাগিয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ব্যবহার করে স্কুল কলেজের সরলমনা তরুণীদের সাথে সম্পর্ক গড়ে তাদের ফাঁদে ফেলে খদ্দেরদের হাতে তুলে দিতেন একই পরিবারের এই দুই পাষণ্ড।

জানা যায়, মূলত ফেসবুকেই মেয়েদের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তাদের ব্লাকমেইল করে নির্ধারিত স্থানে আনা হত। ছেলে মাসুদ ফেসবুকে ‘ অলৌকিক দিশারী ‘ ও ‘ক্লান্ত বেড়াল’ নামে দুটি আইডি থেকে মেয়েদের সাথে প্রেমের সম্পর্ক করত। এরমধ্যে কিছু সংখ্যক তরুণী প্রতারকচক্রের ফাঁদে পা দিয়ে নিজেদের ব্যক্তিগত ছবি আদানপ্রদান করত। তা দিয়েই কর‍া হত ব্লাকমেইলিং।

দীর্ঘদিন যাবৎ মাসুদ (অলৌকিক দিশারী) ও তার মায়ের পৈশাচিকতার শিকার হয়ে আসছিলেন ঢাকা মহিলা কলেজের ছাত্রী তাহেরা আক্তার। এটিএন নিউজকে তাহেরা বলেন, ‘ওরা প্রথমে মেয়েদেরকে লঞ্চে করে ঘুরতে নিয়ে যাবার কথা বলে কেবিনে আটকে রেখে সঙ্গম করে। এসময় মায়ের উপস্থিতিতেই ছেলে এ কাজে লিপ্ত হয়। তারপর ভিকটিমের ভিডিও ধারণ করে তা প্রকাশ করে দেয়ার ভয় দেখিয়ে কাস্টোমারদের বিছানায় তাদেরকে পাঠাতে বাধ্য করা হয়।’

তাহেরা আরো বলেন, এরা ইয়াবা ব্যবসা সহ আরো নানারকমের মাদকের ব্যবসায়ও সরাসরি ভাবে জড়িত।